ঢাকা, মঙ্গলবার, ০২ জুন ২০২০, ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Bangla Insider

অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে ফাইনালে ভারত

স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ২১ জুলাই ২০১৭ শুক্রবার, ১০:১৫ এএম
অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে ফাইনালে ভারত

পাহাড়সম চাপ মাথায় নিয়েও এত ভাল খেলা যায় সেটা নারী বিশ্বকাপে ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়ার খেলা না দেখলে বোঝার উপায় নেই।

ডার্বির কাউন্টি গ্রাউন্ডে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই ধুঁকতে থাকে ভারত। ৬ রানে প্রথম উইকেট হারিয়ে বসে ভারত এরপর আবারও ৩৫ রানে দ্বিতীয় উইকেট হারায় ভারত। এরপর মিতালি রাজের সঙ্গে জুটি বাঁধেন হারমান প্রিত কউ ভোলার।

কিন্তু মিতালি তাকে যোগ্য সংগ দিতে ব্যর্থ হন। ফিরে যান ৩৬ রান করেই। ১০০ রানের আগেই ৩ উইকেট হারিয়ে সেমিফাইনালের মত ম্যাচে দল দিশেহারা তখন হারমান প্রিত কর ব্যাটিং কারিশমা দেখানো শুরু করেন।

খুব একটা সাহায্য হারমান কারো কাছ থেকেই পাননি তবুও একাই লড়াই করেছেন। এরপর তার সঙ্গে জুটি বেঁধে দিপ্তি শর্মা ২৫ এবং কৃষ্ণমুর্তি করেন মাত্র ১৬ রান। স্কোরবোর্ডের দিকে লক্ষ্য করলেও সব পরিস্কার হয়ে যায় যে কার অবদান ভারতে ব্যাটিং ইনিংসে কতটুকু।

ইতিহাস গড়া ১৭১ রানের ইনিংস খেলতে হারমান খেলেছেন মাত্র ১১৫ বল। ২০ টি চার এবং ৭ টি ছয়ে ১৪৮.৬৯ স্ট্রাইকা রেটে রান তুলেছেন এই ভারতীয়। এত ভাল একটি ইনিংস খেললেও দলের রান গিয়ে থেমেছে ২৮১ চার উইকেট হারিয়ে।

অস্ট্রেলিয়া ব্যাটিং করতে নেমে ভারতের মতই চাপে পড়ে। ওপেনার মুনি আর অধিনায়ক ল্যানিং ফিরে যান যথাক্রমে ০ এবং ১ রান করেই। পেরি আর বোল্টন চাপ সামাল দিতে চাইলেও পারেননি। বোল্টন ফিরে যান ১৪ রান করে।

এরপর ভিলানি ৭৫ এবং ব্ল্যাকওয়েল ৯০ রান করলেও সেটি শুধু পরাজয়ের ক্ষেত্রে রানসংখ্যাই কমিয়েছে। শেষ পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়াকে থামতে হয় ওসব উইকেট হারিয়ে ২৪৫ রানে। এর ফলে হারমান প্রিতের ঐতিহাসিক সেঞ্চুরি করার দিনে ভারতও উঠে গেল নারী বিশ্বকাপের ফাইনালে।

ফাইনালে ২৩ জুলাই ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হবে ভারত।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
ভারত :
 ২৮১/৪
অস্ট্রেলিয়া : ২৪৫ অলআউট।

ভারত : ২৮১/৪ (হারমান প্রিত ১৭১, মিতালি রাজ ৩৬, দিপ্তি শর্মা ২৫, ভেদা কৃষ্ণমুর্তি ১৬ ; শাট ১/৬৪, গার্ডনার ১/৪৩, বিমস ১/৪৯, ভিলানি ১/১৯)

অস্ট্রেলিয়া
 : ২৪৫। (ব্ল্যাকওয়েল ৯০, ভিলানি ৭৫, পেরি ৩৮, বিমস ১১ ; শর্মা ৩/৫৯, গোস্বামী ২/৩৫, পান্ডে ২/১৭, ইয়াদাভ ১/৬০, গায়াকাওয়াদ ১/৬২)

ফল: ভারত ৩৬ রানে জয়ী।
ম্যাচ অফ দ্যা ম্যাচ : হারমান প্রিত কর ভোলার।

বাংলা ইনসাইডার/এনআই