ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৪ জুন ২০২০, ২১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Bangla Insider

আইসিসি র‌্যাংকিংয়ে বাংলাদেশ

স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৪ জুলাই ২০১৭ শুক্রবার, ০৮:৫৯ এএম
আইসিসি র‌্যাংকিংয়ে বাংলাদেশ

ওয়ানডে ও টেস্ট ক্রিকেটে সময়টা বেশ ভালো যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের। চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে সেমিফাইনালে খেলা, ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালও খেলেছে টাইগাররা। টানা দুই বছর ধরে ভালো ক্রিকেট খেলতে থাকা বাংলাদেশ উপহার স্বরূপ জায়গা করে নিয়েছে আইসিসির ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ে ৭ নম্বরে।

ম্যাশ বাহিনী নিজেদের মাটিতে হারিয়েছে ভারত,পাকিস্তান ও দক্ষিণ আফ্রিকার মতো দলগুলোকে। সেটাও বেশ দাপটের সঙ্গে। চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে ভালো পারফরম্যান্সে ৬ষ্ঠ অবস্থানে ছিল বাংলাদেশ। কিন্তু পাকিস্তান চ্যাম্পিয়নস ট্রফি জিতে যাওয়ায় বাংলাদেশ আবার ৭ম অবস্থানে নেমে যায়।

সম্প্রতি জিম্বাবুয়ের কাছে শ্রীলঙ্কা ওয়ানডে সিরিজ হারায় বাংলাদেশের সঙ্গে তাদের পয়েন্টের ব্যবধান ছয়। তাই ৭ম অবস্থানে থাকলেও বাংলাদেশ দলের ২০১৯ সালের বিশ্বকাপ খেলা নিশ্চিত। তবে এখন লঙ্কানদের বিশ্বকাপ খেলা পড়ে গেছে সংশয়ে। শ্রীলঙ্কার আগস্ট মাসে ভারতে সঙ্গে ওয়ানডে সিরিজ আছে। লংকানরা যদি ৪ ম্যাচেই জয়লাভ করে তাহলে ৯৫ পয়েন্ট নিয়ে চলে যাবে ৬ নম্বর পজিশনে। আবার তারা যদি ৩-১ ব্যাবধানে সিরিজ জিতে নেয় তাহলে ব্যাপার এমন হয়ে যাবে যে পাকিস্তান ৬ নম্বর পজিশনে থাকবে ৯৫ পয়েন্ট নিয়ে অন্যদিকে বাংলাদেশ ৭ম পজিশন ধরে রাখবে সেই ৯৪ পয়েন্ট নিয়েই। আর শ্রীলঙ্কা আটেই থাকবে ৮৮ বআ ৮৯ পয়েন্ট নিয়ে। অর্থাৎ চান্দিমালদের কমপক্ষে দুই বা এক ম্যাচ জিততেই হবে ভারতের বিপক্ষে। অন্যতায় তারা ছিটকেও যেতে পারে বিশ্বকাপের রেস থেকে।

আবার ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৯ম পজিশনে থাকলেও পয়েন্ট ব্যবধান অনেক বেশি, ৬ষ্ঠ বা ৭ম পজিশনে থাকা দলের সঙ্গে। সেক্ষেত্রে সেপ্টেম্বরে ইংল্যান্ডের সঙ্গে হতে যাওয়া ৪ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে যদি ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৪ ম্যাচও জিতে যায় তাহলেও তাদের র‍্যাংকিং এ কোন পরিবর্তন হবে না। শুধু তাদের র‍্যাংকিং পয়েন্ট বাড়বে। ইংল্যান্ড ছাড়াও আয়ারল্যান্ডের সঙ্গেও একটি ম্যাচ খেলবে তারা। তাই সরাসরি বিশ্বকাপে খেলতে হলে, সব মিলিয়ে হাতে ছয় ম্যাচের মধ্যে ছয়টি ম্যাচই জিততে হবে ক্যারবীয়দের। তো মোটামুটি সব হিসাব-নিকাশ এটাই বলছে যে বাংলাদেশ ২০১৯ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপ খেলছে।

এবার টেস্টে বাংলাদেশের অবস্থান নিয়ে আলোচনা করা যাক। টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশ দল শুরুর থেকেই খুব একটা ভালো করতে পারেনি। তবে গত একবছর থেকে ভালো খেলা শুরু করেছে টাইগাররা। নিজেদের মাটিতে ইংল্যান্ডের সঙ্গে ১-১ এ সিরিজ ড্র করেছিল মুশফিক বাহিনী। দারুণ বল করেছিলেন মিরাজ এবং সাকিব আল হাসান। নিউজিল্যান্ডেও এওয়ে হিসেবে বেশ ভালোই ফাইট দিয়েছিল বাংলাদেশ। কিন্তু শেষ পর্যন্ত জয়ের মুখ দেখা হয়নি এক ম্যাচেও। এরপর শ্রীলঙ্কার মাটিতে লঙ্কানদের বিপক্ষে শততম টেস্ট জয়। টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে বাংলাদেশকে নিয়ে, নিজেদের শততম ম্যাচে জয় পাওয়া দল মাত্র চারটি। বর্তমান আইসিসি টেস্ট র‍্যাংকিংয়ে বাংলাদেশ আছে ৯ নম্বরে।

টেস্ট র‌্যাংকিংয়ে ভারত আছে ১ নম্বর পজিশনে। তারপরেই যথাক্রমে আছে দক্ষিণ আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড এবং নিউজিল্যান্ড। ব্যাপারটা কাকতালীয় ভাবে কিছুটা মিল আছে ওয়ানডে র‍্যাংকিং এর সঙ্গে।
ক্রিকেটের ছোট ফরম্যাটে টাইগারদের অবস্থান ভালো নয়। টাইগাররা আফগানদেরও নিচে অবস্থান করছে। টি-২০ বাংলাদেশ ১০ম স্থানে অবস্থান করছে। নিউজিল্যান্ড আছে সবার উপরে। এরপর আছে ইংল্যান্ড, পাকিস্তানের মত দল। অবাক করার মত বিষয় হচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকা আছে ৬ নম্বরে এবং অস্ট্রেলিয়া আছে ৭ম স্থানে।


বাংলা ইন্সাইডার/এনআই/ডিআর