ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৪ জুন ২০২০, ২১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Bangla Insider

হঠাৎ পেশিতে টান?

স্বাস্থ্য ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৫ জুলাই ২০১৭ শনিবার, ০৪:০১ পিএম
হঠাৎ পেশিতে টান?

দিব্যি হাঁটছেন আপনি, হঠাৎ করে ব্যথা আর ওমনি এক পাও ফেলতে পারছেন না। হাঁটার মাঝে, নিচে ঝুঁকতে, বসা থেকে উঠতে গিয়ে, ঘুমানোর সময় বা অন্য কোন কাজের মাঝে এরকম মাংসপেশির টান আমরা কখনো না কখনো অনুভব করেছি। যার হয়েছে সেই বুঝতে পারবে এই আচমকা ব্যথার অস্বস্তিকতা।

তাই আজ ঘরোয়া চেম্বারের এই পর্বে জানবো পেশিতে টান নিয়ে। পরামর্শ দিচ্ছেন মেডিসিন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. এ বি এম আব্দুল্লাহ।

মাংসপেশির টানকে মেডিকেলের পরিভাষায় `মাসল ক্রাম্প’ বলা হয়। এই মাংসপেশির টান নানা কারণে হতে পারে। দীর্ঘসময় ধরে অতিরিক্ত পরিশ্রমের কারণে মাংসপেশিতে বেশি টান লাগতে পারে। আবার দীর্ঘক্ষণ বসে বা দাঁড়িয়ে থাকলেও এমনটা হয়। এছাড়াও পানিশূন্যতা, আঘাত, রক্তে পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম ও ম্যাগনেসিয়ামের অভাব, ওষুধের পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়া, কিছু ভিটামিনের অভাবের কারণে মাংসপেশিতে টান লাগে। পায়ের পেশিতেই সব থেকে বেশি টান লেগে থাকে। 

হঠাৎ মাংপেশিতে টান লাগলে কী করা যেতে পারে? 

মাংসপেশির টান নিয়মিত হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। যে অংশের পেশিতে টান লাগবে সে অংশকে শিথিল বা রিলাক্স করতে হবে। রিলাক্স করতে হালকা স্ট্রেচিং ব্যায়াম করতে পারেন। আঙ্গুলের পেশিতে টান লাগার ফলে আঙ্গুল যে দিকে বেকে যায় তার বিপরীতে আস্তে করে টানতে হবে। তাহলে আরাম পাবেন।

আক্রান্ত স্থানে মৃদু গরম পানির সেক দিয়ে হালকাভাবে ম্যাসাজ করুন। সাময়িকভাবে ব্যাথা কমে যাবে। খেলোয়াড়দের ক্ষেত্রে ওয়ার্মআপ এক্সারসাইজ করে খেলা শুরু করলে পেশিটানের আশংকা এড়ানো সম্ভব।

ব্যথা গুরুতর হলে প্রথম দুই দিন পূর্ণাঙ্গ বিশ্রামে নিতে হবে। সে সঙ্গে তোয়ালেতে বরফ নিয়ে আঘাতপ্রাপ্ত স্থানে লাগাতে হবে। এতে আঘাত প্রাপ্ত স্থানের ফোলা কমে যাবে।

কী কী ভাবে মাংসপেশির টান প্রতিরোধ করা যাবে?

চেষ্টা থাকবে পেশি যেন নমনীয় থাকে। তাই সব সময়, বিশেষ করে খেলার সময় সঠিক জুতা পরতে হবে। যে কোন শক্তির কাজ যেমন- ব্যায়াম বা খেলা ধীরগতিতে শুরু করতে হবে। তাছাড়া যাদের ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, পটাশিয়াম ও ভিটামিনের ঘাটতি আছে তাদের এইসব উপাদান সমৃদ্ধ খাবার খেতে হবে। অনেকের ক্ষেত্রে চিকিৎসক সাপ্লিমেন্ট সাজেস্ট করে থাকেন।

আপনার কোনো প্রশ্ন থাকলে এখানে ক্লিক করুন

বাংলা ইনসাইডার/এমএ