ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৪ জুন ২০২০, ২১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Bangla Insider

সংকটে বলিউড

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৫ জুলাই ২০১৭ শনিবার, ০৮:২৯ পিএম
সংকটে বলিউড

বলিউডের কী ক্রান্তিকাল শুরু হলো? ‘বাহুবলি ২’ সিনেমা দিয়ে বলিউড টিনসেলে যে আশা জেগেছিলো। তা কী হারিয়ে যাচ্ছে? অনেকেই ভেবে রেখেছিল হলিউডের সঙ্গে টেক্কা দিতে আর বেশি দিন নেই। বাজেটে হলিউডকে হার মানাতে যাচ্ছে বলিউড। এক ছবি বদলে দিয়েছিল সব হিসেব নিকেশ। বাজেট যতোই হোক। বলিউড থেকে সে বাজেট তোলা সম্ভব। কিন্তু বলিউড যে পাহাড় চূড়ায় চড়েছিল, তার অবসান হয়তো হতে যাচ্ছে। বছরের সাত মাস শেষ হতে চলছে। অথচ আশানুরুপ ব্যবসা করতে পারছে না কোন ছবি।

বলিউডের খোঁজ খবর যারা রাখেন, তাদের নিশ্চয়ই অগোচরে থাকে না বক্স অফিস রিপোর্ট। বছরটা ভালো যাচ্ছে না বলিউডের। প্রত্যাশিত ছবিগুলোর থেকে দর্শক মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন। তার সর্বশেষ উদাহরন ‘জাগ্গা জাসুস’। শুরুর দিনই মুখ থুবরে পড়েছে। প্রথম দিনে বক্স অফিস রিপোর্ট অনুযায়ী আয় মাত্র ৮ দশমিক ৫৭ কোটি রুপি।

এর আগে শ্রীদেবীর `মম` প্রথম সপ্তাহ শেষে আয় করেছে ২৩ দশমিক ৩০ কোটি রুপি, সালমান খানের বহুল প্রত্যাশিত ‘টিউব লাইট’ আয় করেছে ১২১ (অ্যাভারেজ), শচীন এ বিলিয়ন ড্রিমস ৫০ দশমিক ৮১ (হিট), হাফ গার্লফ্রেন্ড ৬০ দশমিক ২৮ (অ্যাভারেজ), হিন্দি মিডিয়াম ৬৯ (সুপারহিট), অমিতাভ বচ্চনের ‘সরকার ৩’ আয় করেছে ৯ দশমিক ৬০(ফ্লপ), বাহুবলি ২ আয় করেছে ৫১১ দশমিক ৩০ (অলটাইম ব্লকবাষ্টার), সোনাক্ষী সিনহার নূর ৭ দশমিক ৫২ (ফ্লপ), বিদ্যা বালানের বেগম জান ১৯ দশমিক ৪০ (অ্যাভারেজ), বদরিনাথ কি দুলহানিয়া ১১৬ দশমিক ৬০ (সুপারহিট), বিশাল ভারদ্বাজ পরিচালিত সাইফ আলী খান , কঙ্গনা , শাহিদ কাপুরের ‘রেঙ্গুন’ আয় করেছে ২৩ (ফ্লপ) , অক্ষয় কুমারের ‘জলি এল এল বি ২’ এর আয়  ১১৭ (সুপারহিট), শাহরুখের ‘রাইস’ ১৩৯ (হিট), কাবিল ১২৬ দশমিক  ৮৫ (সুপারহিট)।

এর মধ্যে অক্ষয় কুমারের ‘জলি এল এল বি ২’ কোনমতে সুপারহিট তকমা পেয়েছে। বরুন-আলিয়ার ‘বদ্রিনাথ কি দুলহানিয়া’ এবং ইরফান খান অভিনীত হিন্দি মিডিয়াম ছবি দুটি প্রত্যাশার চেয়েও ভালো করেছে ।

অবিশ্বাস্য রকম সফল বাহুবলী ২; সাফল্য বলতে এ বছর এইটুকুই। বলিউডের মতো এতো বড় একটা ইন্ড্রাস্ট্রির জন্য কী তা সান্ত্বনা হতে পারে!

এর কারণ কী? অনেকে মনে করেন ‘বাহুবলী ২’এর পরই ছবিগুলোর এমন ধরাশয়ী অবস্থা। দর্শক ভিন্ন আঙ্গিকের বড় বাজেটের ছবি দেখতে চায়। ‘বাহুবলি ২’ এর গ্রাফিকাল কারুকার্য থেকে শুরু করে সব কিছুই দর্শকের মন ছুয়ে গেছে। দর্শক বড় বাজেটের ছবি দেখতে চায়। এ বছর আর একটি অভাব দেখা গেছে গল্পের। ‘পিকু’ কিংবা ‘কাহানী’ বড় বাজেটের ছবি না হলেও গল্প মন ছুয়ে গেছে। এবছরের ছবিগুলোতে ছিল পূর্বের গল্পের চর্বিত চর্বন। কোন ছবিই নতুন ডাইমেনশন তৈরী করতে পারেনি। উদাহরন হিসেবে ধরা যায় ‘টিউবলাইট’কে। সালমানের চরিত্রকে ইমোশনাল করতে গিয়ে সেই ‘বজরঙ্গি ভাইজান’কেই নতুন ভাবে উপস্থাপন। যার ফল হিসেবে বহুদিন পর সালমান খানের সিনেমা প্রত্যাশিত ব্যবসা করেনি।

বলিউডে চলছে প্রকট হারে নায়ক-নায়িকা সঙ্কটও। এই সংকটের রয়েছে কয়েকটি ভাগ। যেমন, খানদের যুগের হয়তো অবসান হতে চলছে। তাইতো প্রভাসদের ওয়েলকাম করছে দর্শক। দুই, নেই প্রতিশ্রুতিশীল কোন নতুনের আগমন। বলিউডে প্রায় প্রতিবছরই কোন না কোন নতুন এসে চমক জাগায়। কিন্তু এ বছরে সেক্ষেত্রেও রয়েছে কমতি। নায়িকা সংকটও ভয়াবহ। উড়ছে না নতুনের কেতন। প্রিয়াঙ্কা, দিপীকা, কারিনাদের অনুপস্থিতিও বেশ টের পাওয়া যাচ্ছে।

অনেকে মনে করেন বলিউডে এই মূহুর্তে ভাল গল্প ও চিত্রনাট্যের সংকট তো চলছেই, সঙ্গে মিউজিকের অবস্থা খুবই খারাপ। বলিউড মানেই সুন্দর গান; সেই দিন বুঝি আর নেই। এ বছর এখন  পর্যন্ত একটা মিউজিক অ্যালবামও চার্ট বাস্টার হয়নি।

সামনে আসছে শাহরুখ খানের ‘যাব হ্যারি মেট সাজাল’, সঞ্জয় লীলা বানসালীর ‘পদ্মাবতী’ আর সালমানের `টাইগার জিন্দা হে’, অক্ষয়ের ‘টয়লেট’, অজয়-এমরানের ‘বাদশাহো’ নিয়ে প্রত্যাশা রয়েছে। আমির খান প্রযোজিত সিনেমা মুক্তির ডেট বারবার পিছাচ্ছে শুধুমাত্র এই মন্দা থেকে রেহাই পেতে। এগুলো থেকে কী এই ক্ষরার উত্তরন ঘটবে? তা সময়ই বলে দিবে।

আশার কথা হলো, বলিউডের ক্রান্তিকাল আসে। কিন্তু তারা সেখান থেকে ঠিকই উতরিয়ে ওঠে। একটাই কারন, তাদের একতাবদ্ধ হয়ে নতুন কনটেন্ট তৈরির নেশা। এ সময়ে হয়তো নতুন কিছু হচ্ছে। কিন্তু সে নতুন দর্শকের রুচি মতো হচ্ছে না। যে বন্ধত্য শুরু হয়েছে। সেখান থেকে হয়তো অচিরেই মুক্তি মিলবে। তেমনই প্রত্যাশা বলিউড প্রেমীদের।


বাংলা ইনসাইডার/এমআরএইচ